1. md.zihadrana@gmail.com : admin :
কানসাট আব্বাস বাজারে মাদক সিন্ডিকেট গডফাদার - দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ

১৯শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । ভোর ৫:৩৫ ।। গভঃ রেজিঃ নং- ডিএ-৬৩৪৬ ।।

সংবাদ শিরোনামঃ
স্বতন্ত্র সাংসদ ওয়াহেদের বেপরোয়া আট খলিফা চৌদ্দগ্রামে পুকুরের মালিকানা নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর হামলা ঋণ খেলাপী রতন চন্দ্রকে কালবের পরিচালক পদ থেকে অপসারন দাবি নীরব ঘাতক নীরব লালমাই অবৈধভাবে ফসলি জমির মাটি নিউজ করতে গিয়ে হুমকি, থানায় জিডি বিশ্বনাথের পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে সাত কাউন্সিলরের পাহাড়সম অভিযোগ বিশ্বনাথে ১১ চেয়ারম্যান প্রার্থী’সহ ২০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল মুখে ভারতীয় পণ্য বয়কট, অথচ ভারতেই বাংলাদেশি পর্যটকের হিড়িক শার্শায় সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিকের উপর হামলা গণপূর্ত অধিদপ্তরের মহা দূর্নীতিবাজ ডিপ্লোমা মাহাবুব আবার ঢাকা মেট্রো ডিভিশনে!
কানসাট আব্বাস বাজারে মাদক সিন্ডিকেট গডফাদার

কানসাট আব্বাস বাজারে মাদক সিন্ডিকেট গডফাদার

রাজশাহী  প্রতিনিধিঃ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ শিবগন্জ থানার কানসাট ইউনিয়নের আব্বাস বাজারের নুরুল ইসলাম পিতাঃমৃত আলতাস আলী। সে একজন মাদক ব্যবসায়ীক গডফাদার , এই করোনা মহামারির মধ্যও থেমে নাই ব্যবসা তার চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা এসপি আব্দুল রাকিব স্যারের দিক নির্দেশনায় মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারস্ সে আনার জন্য কঠোর বিশেষ অভিযান পরিচনার দিক নির্দেশনা দেন।
শিবগঞ্জ থানা পুলিশর এই কঠোর বিশেষ অভিযান প্ররিচলনা থাকার পরেও থেমে নেই মাদক ব্যবসা নুরুল ইসলাম এর। সে বিভিন্ণ নতুন কৌশলে পুলিশের চোখে পাখি দিয়ে কৌশলে মাদক বিক্রি করেই চলছে , এবং তার এই মাদক ব্যবসার কথা এলাকাসী বললেই তাদর সাথে বাদ বিতর্ক করে। তার এই মাদক ব্যবসা করাের ফলে এলাবাসি অশান্তিে ভৌগান্তর শিকাবরে পড়ে আছে। নাম বলতে একজন নারাজি ব্যাক্তি বলেন যে এই নুরুল ইসলাম এলাকাটকে
মাদক বিক্রি করে পরিবেশ নষ্ট করে ফেলছে। আরও বলেন যে কিন্তু দিন আগে জেল খেটে বেরিয়ে এলো আসার পর থেকে আর মাদক ব্যবসা জরদার করে তুলেছে। এবং তাকে কেউ কোন কিছু বলতে গেলে মানুষজনকে বলে আমার মাদক ব্যবসা কেউ বন্ধ করতে পারবেনা, সে বলে আমার অনেক লোকজন আছে এমন ও কথা বলে। সে কানসাট আব্বাস বাজার টাকে দিনে রাতে এমনভাবে প্রতিনিয়ত মাদক বিক্রি করছে বলে বুঝানো যাবেনা, তার কাছে দুর দুরান্তের বড় বড় গাড়ি বহর আসে দিয়ে পান কে যায়। এবং সে নাকি তার মাদক বিক্রি করার জন্য নাকি বিভিন্ন লোকজনকে টাকা দেন। তাই সে দিনে রাতে সব সময় মাদক বিক্রি করেই চলছে, থানা পুলিশের একজন সোর্স মোঃ হাকিম আলী কে নাকি নুরুল ইলাম তাকে মাসিক চাদা দেই। আরও বলে মানুষজনে যে আমার মাদক ব্যবসা কেউ বন্ধ করতে পারবে না। তাই এলাকাসীর লোকজনের দাবি যে পুলিশের এতো কঠোর বিষেশ অভিযান পরিচলানা থাকার পরেও কেমন করে সে দিরতে মাদক বিক্রি করেই চলছে। তাই লোজকনের কথা যে সে যেন মাদক বিক্রি করতে না পারে যেন বিষয়ে আইনের কাছে যেন সে ধরা পড়ে যেন বলেন।
তাই কানসাট আব্বাস বাজারের নুরুল ইসলাম যেন তার এই প্রকাশে যে মাদক বিক্রি করতে না পড়ে এবং যেন আইনের হাতে দিয়ে তার বিচার হয়।
এই নুরুল ইসলাম এলাকটা এমন ভাবে নষ্ট করে ছে বলে বুঝানো যাবে না, তার এই মাদক বিক্রির ফলে দেশের কিশোর যুব সমাজ নষ্ঠ হয়ে যাচ্ছে। তার কাছে মাদক সেবন করতে দুর দুরান্ত থেকে লোকজন আসে, এবং সে এমন ভাবে বাজার টা নষ্ট করে তুলছে বলে যাবেনা। এবং সে নাকি মাদক বিক্রি সিন্ডিকেটের গডফাদার সে হোল সেলার ভাবে মাদক বিক্রি করে, আইনে হাতে যেন ধরা পড়ে তার বিচার হয় সে যেন কানসাট আব্বারে মাদক বিক্রি করতে না পারে সে ব্যবাস্থ নিবেন। পুলিশের এই বিশেষ কঠোর অভিযান দিয়ে সে যেন ধরা পড়ে ও কার বিচার করে। এবং সে মানুজনে মানুষ মনে করেনা মানুজনের সাথে ঝামেলা করে তার অনেক টাকা পয়সা আছে তাকে কেচ কিছু করতে পারবেনা এই কথা বাত্রা বলেন। তাই এলাবাসীর দামি সে যেন আইনের আওতায় যেন ধরা পড়ে ও বিচার হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2021
ভাষা পরিবর্তন করুন »