1. md.zihadrana@gmail.com : admin :
চন্দনাইশ সাতকানিয়ার সাংবাদিকদের সাথে নাগরিক কমিটির প্রার্থীর মতবিনিময় - দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ

২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । সকাল ৯:৪০ ।। গভঃ রেজিঃ নং- ডিএ-৬৩৪৬ ।।

সংবাদ শিরোনামঃ
শার্শায় মিটার ‘রিডিং’ না দেখেই অফিসে বসে করা হচ্ছে বিদ্যুৎ বিল,গ্রাহকদের মাঝে ক্ষোভ বাংলাদেশ সংবাদপত্র শিল্প পরিষদের ৮ম সভা অনুষ্ঠিত: সংবাদপত্র শিল্প টিকিয়ে রাখতে প্রধানমন্ত্রীর  সহযোগিতা কামনা ভেজাল কোম্পানীর ভেজাল বাণিজ্যে স্বাস্থ্যসেবায় হুমকি  পত্রিকার প্যাডে সুইসাইড নোটসহ নদীতে মিলল যুবকের অর্ধগলিত লাশ ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান জমি দখল করতে না পারায় ইমরান কর্তৃক খালেদ আল মামুনের বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার  প্রবেশন সুবিধা পেল জবি শিক্ষার্থী তিথি কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদের হিসাব রক্ষক শত কোটি টাকা অবৈধ সম্পদ অর্জনে, দুদকে অভিযোগ লেগুনা ড্রাইভার সোহেল ৩ থানায় গড়ে তুলেছে বিশাল এক সন্ত্রাসী বাহিনী যশোরে শীর্ষ সন্ত্রাসী জনপ্রতিনিধি দ্বারা খুন-১ আহত-১
চন্দনাইশ সাতকানিয়ার সাংবাদিকদের সাথে নাগরিক কমিটির প্রার্থীর মতবিনিময়

চন্দনাইশ সাতকানিয়ার সাংবাদিকদের সাথে নাগরিক কমিটির প্রার্থীর মতবিনিময়

এস.এ.এম. মুনতাসির, চট্টগ্রাম ব্যাূরো।

চট্টগ্রাম ১৪ আসনের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নাগরিক কমিটির পক্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুল জব্বার চৌধুরী প্রতীক (ট্রাক) ৩ই জানুয়ারি(বুধবার) সন্ধ্যায় তার নিজ বাস ভবনে চন্দনাইশ সাতকানিয়া উপজেলার কর্মরত বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। এ সময় স্বতন্ত্র প্রার্থী সাংবাদিকদের সামনে ইস্তেহার পাঠ করে শুনান। তিনি তার ইস্তাহার পাঠে বলেন, অর্থনৈতিক অঞ্চল গঠন ও ব্যাপক কর্মসংস্থানের সৃষ্টি, কৃষিখাত ও কৃষকদের মান উন্নয়ন, যুগোপযোগী শিক্ষার প্রসার ও কার্যকরী ব্যবস্থা, পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন, চৌকিদার ফাড়ির ব্রীজ স্থাপন, স্বাস্থ্য খাতের মান উন্নয়ন ও বিনামূল্যে দরিদ্র জনগণকে চিকিৎসা সহায়তা, ন্যায়বিচার ও সুশাসন প্রতিষ্ঠা, মাদকমুক্ত সমাজ ব্যবস্থা, বাস্তুহারা মানুষের জন্য গৃহ নির্মাণ , অভ্যন্তরীন উন্নয়ন, উন্নত যোগাযোগ ও অবকাঠামোগত পরিবর্তন, বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেটের সুব্যবস্থা, উদ্যোগক্তাদের জন্য প্রশিক্ষণ ও মূলধনের যোগান, নদী ও পাহাড়ের নৈসর্গিক সৌন্দর্যকে কেন্দ্র করে অত্র এলাকাকে বিশ্বমানের পর্যটন এলাকায় উন্নীত করা, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোগত পরিবর্তন এবং ধর্মীয় শিক্ষার ব্যাপক সম্প্রসারণ, পরিবেশবান্ধব এলাকা ও নিরাপদ সুপেয় পানির বিশেষ ব্যাবস্থা, সামপ্রদায়িক সম্প্রতি রক্ষা এবং অসাম্প্রদায়িক সমাজ গঠন, সব শ্রেণির জনগোষ্ঠীকে সম্পৃক্ত করে যুগোপযোগী দীর্ঘ মেয়াদী মহাপরিকল্পনা গঠন, শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশের জন্য সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড ও খেলার মাঠসহ বিভিন্ন ‘স্পোর্টস কমপ্লেক্স ‘ গঠন। গুণীজন ও মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বহুমাত্রিক পদক্ষেপ গ্রহণ, শিশুপার্ক নির্মাণ, প্রবাসীদের জন্য বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা প্রদান, অত্র অঞ্চলের উৎপাদিত কৃষিপণ্য ও হস্তশিল্পকে ন্যায্যমূল্যে বিপণন ব্যবস্থার পদক্ষেপ গ্রহণ, সাঙ্গু নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে আনা ও এর গুরুত্ব জাতীয়ভাবে উপস্থাপন করা এবং পাশাপাশি দুই পাশের জনগোষ্ঠীর জন্য আলাদা করে হিমাগার নির্মাণ করা, বন্যা মোকাবিলা ও ক্ষয়ক্ষতি রোধ করার জন্য দীর্ঘমেয়াদী বাস্তবমূখী পদক্ষেপ গ্রহণ করা। সামাজিক অসংগতি যেমন বাল্যবিবাহ, যৌতুক, ইভটিজিং, নারী নির্যাতন ও বিভিন্ন বৈষম্যমূলক সমাজের অসংগতি প্রতিরোধে যুগোপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর(সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচি, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা ইত্যাদি) ভাগ্যোন্নয়নে পদক্ষেপ গ্রহণ। এছাড়া সকল সরকারি ও বেসরকারি সুযোগ সুবিধা একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল এ্যাপসের মাধ্যমে সেবা নিতে পারে তার জন্য বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ। বাৎসরিক উন্নয়ন ও জবাবদিহিতার জন্য জনগণের মুখোমুখি হওয়া।
এসময় তার সাথে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি, হাবিবুর রহমান, শওকত হোসেন হিরু, দোহাজারীর সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বেগ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবর আলী ইনু, ধর্মপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইলিয়াস চৌধুরী, গাছবাড়ীয়া কলেজের সাবেক ভিপি শেখ টিপু চৌধুরী, কেওছিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মুনির আহমেদ, বরমা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম, হাশিমপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী, মুক্তিযোদ্ধা ফেরদৌস ইসলাম খান, গাছবাড়ীয়া সরকারী কলেজের ছাত্রলীগ নেতা জিয়াতুর রশিদ বাপ্পী, আওয়ামী লীগ নেতা হেলাল উদ্দিন চৌধুরী, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, মো: আবু তালেব, মো: নাজিম উদ্দীন, নয়ন চৌধুরী, তৌফিকুল ইসলাম চৌধুরী, আবুল কালাম প্রমূখ।
এছাড়া তিনি আরো বলেন, বেশ কিছু ভোট কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন, গুলারতালু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ব জোয়ারা মহিলা মাদ্রাসা, সাতবাড়ীয়া শাহ আমানত সিনিয়র মাদ্রাসা, পাঠানদন্ডী তাহেরিয়া সাবেরিয়া সুন্নিয়া সিনিয়ার মাদ্রাসা, জোয়ারা নগরপাড়া কেন্দ্র, ধর্মপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, হাছনদন্ডী এস আর সিনিয়ার মাদ্রাসা কেন্দ্র, জামিজুরী অমিতাভ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র। তিনি আরো বলেন, ইদানীং তার বিভিন্ন এলাকার ভোটার, নেতাকর্মী সমর্থকদের মারধর সহ বিভিন্ন নির্বাচনী অফিস ভাঙ্গচুরের অভিযোগ করেন।
সেই কেন্দ্র গুলোর বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রসাশন ও উপস্থিত সাংবাদিকদের সহযোগিতা আশা করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2021
ভাষা পরিবর্তন করুন »