1. md.zihadrana@gmail.com : admin :
বাংলাদেশ সচিবালয়ে ভয়ংকর জালিয়াতচক্র: জাল চিঠি ইস্যু করে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা! - দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ

২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । সন্ধ্যা ৭:৫০ ।। গভঃ রেজিঃ নং- ডিএ-৬৩৪৬ ।।

সংবাদ শিরোনামঃ
গণপূর্তের ইএম কারখানা বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী ইউসুফের ভুয়া বিল ও কমিশন বাণিজ্য কার বলে বলিয়ান এলজিইডির বাবু নারায়ণগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে আনসার এবং দালালদের চলছে প্রকাশ্যে ঘুষ বাণিজ্য  বেনাপোল কাস্টমস কর্মকর্তা এসি নুরের অবাধ ঘুষ বাণিজ্য গুচ্ছের পছন্দক্রমে সর্বোচ্চ আবেদন জবিতে টঙ্গীর মাদক সম্রাজ্ঞী আরফিনার বিলাসবহুল বাড়ী-গাড়ী রেখে থাকেন বস্তিতে! শরীয়তপুরে কিশোরীকে অপহরণের পর গনধর্ষণ বেনাপোল কাস্টমসে ফুলমিয়া নাজমুল সিন্ডিকেটের ডিএম ফাইলে অবাধ ঘুষ বাণিজ্য নারীঘটিত কারন দেখিয়ে জবির ইমামকে অব্যাহতি, শিক্ষার্থীরা বলছে সাজানো নাটক মিটফোর্ডের জিনসিন জামান এখন ইমপেক্স ল্যাবরেটরীজ (আয়) এর গর্বিত মালিক
বাংলাদেশ সচিবালয়ে ভয়ংকর জালিয়াতচক্র: জাল চিঠি ইস্যু করে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা!

বাংলাদেশ সচিবালয়ে ভয়ংকর জালিয়াতচক্র: জাল চিঠি ইস্যু করে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা!

স্টাফ রিপোর্টারঃ

বাংলাদেশ সচিবালয়ে ভয়ংকর এক জালিয়াতচক্রের সন্ধান পাওয়াগেছে। এই চক্রটি দীর্ঘদিন যাবত সারাদেশে উপজেলা পরিষদ, ইউনিয়ন পরিষদের বরাবরে জাল চিঠি ইস্যু করে ইউপি চেয়ারম্যান,মেম্বার,ঠিকাদার,হাটবাজার ইজারাদার ও সাধারন মানুষের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। তারা টিআর,জি আর,খাবিখা,কাবিটা, চাল গম ও নগদ অর্থ বরাদ্দ, থোক বরাদ্দ,গ্রামীণ প্রকল্প অনুমোদন,হাটবাজার ইজারা বরাদ্দ এবং মতস্য জলাশয় বরাদ্দের নামে জাল চিঠি ইস্যু করে মানুষকে সর্বস্বান্ত করছে। এক্ষেত্রে তারা মন্ত্রী,সচিব,অতি: সচিব,যুগ্ম সচিব ও উপ সচিবদের স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া স্মারক নম্বর ব্যবহার করে সচিবালয় থেকে পত্র প্রেরণ করছে। চক্রটি এভাবে কোটি কোটি টাকার মালিক বনেগেছে। আর তাদের প্রতারণা ও জালিয়াতির শিকার হয়ে আম-ছালা দুইই হারাচ্ছেন অসংখ্য মানুষ।
এমন একটি ঘনার সন্ধান মিলেছে আমাদের অনুসন্ধানে। জানাগেছে, মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার শতখালী হাটটি ৫৫ লক্ষ টাকা মুল্যে ইজারা নিতে ৩০% টাকা পেঅর্ডার করে গত ১৪/০৫/২০২৩ ইং তারিখে স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে সচিব বরাবরে আবেদন করেন সীমাখালী এলাকার মেসার্স নুসরাত এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী মো: সালাহ উদ্দিন। যার ডাইরী নং ১৪৭২। তদপ্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে ৫০% পেঅর্ডার গ্রহনকরত আবেদনকারীকে হাটটি ইজারা প্রদান করে গত ০৬/০৬/২০২৩ ইং তারিখে স্মারক নং ৪৬.০০.০০০০.০৪১.০৩৫.০০২.২০২০-৪৯৪ মোতাবেক পত্র জারি করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। ওই পত্রে স্বাক্ষর করেন উপসচিব শাহেদ পারভেজ। ওই পত্রের অনুলিপি মাগুরা জেলা প্রশাসক, চেয়ারম্যান শালিখা উপজেলা পরিষদ, শালিখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ অন্যান্য দপ্তরে প্রেরণ করা হয়। কিন্ত পত্রখানা প্রায় এক সপ্তাহেও মাগুরা জেলা প্রশাসকের দপ্তরে না পৌছালে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। ভুক্তভোগী ইজারাদার তখন মাগুরা জেলা প্রশাসকের দপ্তরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন ওই চিঠিটি জাল। এধরনের কোন চিঠি স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে ০৬/০৬/২০২৩ ইং তারিখে ইস্যু করা হয়নি। চিঠিতে উপ সচিবের স্বাক্ষরটিও জাল।
ঘটনার নেপথ্যে কে ?
অনুসন্ধাকালে জানাগেছে,এই চিঠি জালিয়াতচক্রের হোতা স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শাহেদ পারভেজ এর অফিস সহকারী ইমরান আলম। তার প্রধান সহযোগী হিসাবে রয়েছেন জনপ্রশাসনে মন্ত্রণালয়ের অধিন সরকারী যানবাহন অধিদপ্তরের মেকানিক মো: মোখলেসুর রহমান ওরফে ( মিক্কন) যার বর্তমান পোষ্টিং সুনামগঞ্জ । ঢাকার ঠিকানা: ফ্ল্যাট নং ২১/ই পলাশী সরকারী কলোনী,ঢাকা। মোবাইল নং-০১৫৫০০২৭২২১ এবং ০১৮৮৫-৫৫১০০৫। এ ছাড়াও তিনি ৫/৬ টি মোবাইল সিম ব্যবহার করেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে ঢাকায় সরকারী যানবাহন অধিদপ্তরে অবস্থান করে একটি শক্তিশালীচক্র গড়ে তুলেছেন।
এই চক্র আলোচ্য চিঠিখানা পাঠাতে বা শতখালী হাটের ইজারাপত্র জারি করতে তিনি গত মে মাসের ১০ তারিখ থেকে সর্ব শেষ জুন মাসের ৩ তারিখ পর্যন্ত মেসার্স নুসরাত এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী মো: সালাহ উদ্দিন ও তার প্রতিনিধির কাছ থেকে ২ লক্ষ ২০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। সর্বশেষ নিয়েছে ৫০ হাজার টাকা। এই টাকা অফিস সহকারী ইমরান আলমের কক্ষে বসে লেনদেন হয়েছে।
যে দুটি মোবাইল থেকে এই চিঠি পাঠানো হয়েছে তার নম্বরও পাওয়াগেছে। প্রথম চিঠিটা পাঠানো হয় ০১৭১০-২৯৫৮৯৫ নম্বরের মোবাইল থেকে। যার মালিক দীনেশ কুমার। তিনি বিদ্যুত মন্ত্রণালয়ে প্রশাসনিক কর্মকর্তা পদে কর্মরত আছেন। সর্বশেষ জাল চিঠিটা পাঠানো হয় ০১৭৬৫- ১০৮৭০৫ নম্বর থেকে। ওই মোবাইলের মালিকের নাম শাহীনুর রহমান । তার গ্রামের বাড়ী সাতক্ষীরা। তিনি ঢাকা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধিন সরকারী যানবাহন অধিদপ্তরে মেকানিক পদে কর্মরত আছেন বলে জানান।
তাদের সাথে কথা বললে তারা উভয়েই জানান, জনপ্রশাসনে মন্ত্রণালয়ের অধিন সরকারী যানবাহন অধিদপ্তরের মেকানিক মো: মোখলেসুর রহমান ওরফে ( মিক্কন) যার বর্তমান পোষ্টিং সুনামগঞ্জ । ঢাকার ঠিকানা: ফ্ল্যাট নং ২১/ই পলাশী সরকারী কলোনী,ঢাকা। মোবাইল নং-০১৫৫০০২৭২২১ এবং ০১৮৮৫-৫৫১০০৫। তিনি এই চিঠিগুলো এনে বলেন তারতো বাটন ফোন তাই তাদের ফোন দিয়ে ছবি তুলে হোয়াটসআপ করে দিতে। মোখলেসুরের অনুরোধেই তারা এই কাজটি করেছেন বলে স্বীকার করেন। তবে চিঠি মোখলেসুর কোথায় পেয়েছেন বা কাকে পাঠাচ্ছেন এ বিষয়ে তারা অবগত নন।
একাধিক সুত্রে আরো জানাগেছে, স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব শাহেদ পারভেজ এর অফিস সহকারী ইমরান আলম এবং সরকারী যানবাহন অধিদপ্তরের মেকানিক মোখলেসুর রহমান ( মিক্কন) এই জাল চিঠি তৈরী ,বিক্রি ও বিতরণের প্রধান কারিগর। তারা বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের চিঠি জাল করে প্রচুর টাকা ও সম্পদের মালিক হয়েছেন। এদেরকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি না দিলে বাংলাদেশ সচিবালয়ের ও সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের গোপন তথ্য ফাঁসসহ জাল চিঠির কারণে প্রশাসনে বিশৃংক্ষলার সৃষ্টি হবে। মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদের ভাবমুর্তি চরম ক্ষুন্ন হবে। একই সাথে সাধারন মানুষ ও জনপ্রতিনিধিরা প্রতারিত হতেই থাকবে।
এ বিষয়ে মেকানিক মোখলেসুর রহমান ও ইমরান আলমের সাথে তাদের মুঠো ফোনে কথা বললে তারা উভয়েই অভিযোগটি অস্বীকার করেন। বলেন, এসব বিষয়ে তারা কিছুই জানেন না।
প্রতারিত মেসার্স নুসরাত এন্টারপ্রাইজের সত্ত্বাধিকারী মো: সালাহ উদ্দিন এ ক্ষেত্রে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও সচিবের দ্রুত আইনী পদক্ষেপ কামনা করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2021
ভাষা পরিবর্তন করুন »