1. md.zihadrana@gmail.com : admin :
মডেল ও অভিনেত্রী দোয়েল ম্যাশের ‘আলফা’ - দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ

২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । সকাল ১০:৪২ ।। গভঃ রেজিঃ নং- ডিএ-৬৩৪৬ ।।

সংবাদ শিরোনামঃ
অটোয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন কর্তৃক ‘মহান শহিদ দিবস’ ও ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ থানার সন্ধ্যা নদীর ভাংগন ঠেকানো যাচ্ছে না ইট ভাটার কারনে দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশের পর সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবু হেনা মোস্তাফার বদলি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন সিংহের বিরুদ্ধে ব্যাপক দূর্ণীতির অভিযোগ তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ছবি নিয়ে মিথ্যাচার ইউনিয়ন আ’লীগের পদের বসেই বিপুল অর্থবৃত্তের মালিক জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র বুড়িচং উপজেলা কমিটি গঠন রিকশা এমদাদ বাহিনীর তাণ্ডবে অতিষ্ঠ বাড্ডাবাসী, থানায় মামলা আবুল মোল্লার বাড়িতে ভয়াবহ ডাকাতি ! শহর সমাজসেবা কার্যালয়-১,ঢাকা কর্তৃক বাস্তবায়িত কার্যক্রম সমূহ জোরদার করন” শীর্ষক সেমিনার
মডেল ও অভিনেত্রী দোয়েল ম্যাশের ‘আলফা’

মডেল ও অভিনেত্রী দোয়েল ম্যাশের ‘আলফা’

বিনোদন প্রতিবেদক॥
দুই বছরের বেশি সময় আগে নাসিরউদ্দিন ইউসুফ পরিচালিত ‘আলফা’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় মডেল ও অভিনেত্রী দোয়েল ম্যাশের। এরপর তিনি এম রাশেদ জামান পরিচালিত ‘চন্দ্রাবতীর কথা’ ও নুরুল আলম আতিকের ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’-তে অভিনয় করেন। তবে করোনাসহ নানা জটিলতায় নতুন আর কোনো সিনেমা মুক্তি পায়নি এ অভিনেত্রীর। যার জন্য দর্শকদের সামনে না আসতে পারার আক্ষেপে ভুগছিলেন দোয়েল। অবশেষে তার আক্ষেপ ও অপেক্ষার অবসান হতে যাচ্ছে। আগামী ১৫ই অক্টোবর দোয়েল অভিনীত ‘চন্দ্রাবতীর কথা’ সিনেমাটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। দেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে সিনেমাটি। সেন্সর বোর্ডে জমা দেয়ার পর সেন্সর বোর্ড ছবিটি আটকে রাখে এক বছরেরও অধিক সময়।
শেষ পর্যন্ত এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে কোনো ধরনের কর্তন ছাড়াই সেন্সর ছাড়পত্র পায় ‘চন্দ্রাবতীর কথা’। বাংলাদেশের প্রথম নারী কবি চন্দ্রাবতী রচিত মলুয়া, দস্যু কেনারামের পালা এবং রামায়ণ অমর সৃষ্টি। চন্দ্রাবতীর নিজের জীবন ছিল অসম্ভব নাটকীয়। ষোড়শ শতকের অসম্ভব প্রতিভাবান ও সংগ্রামী এই নারীকে নিয়ে নির্মিত হয়েছে সিনেমাটি। দোয়েল জানান, চন্দ্রাবতীর জন্মস্থান কিশোরগঞ্জের রিয়েল লোকেশনেই ছবির পুরো শুটিং করা হয়েছে। সিনেমায় গ্রামের সাধারণ মানুষেরাও অভিনয় করেছেন। বিশেষ করে পালাকার বা বয়াতি, এ রকম চরিত্রগুলোতে সেখানকার গ্রামের মানুষই অভিনয় করেছেন। সিনেমাটি সরকারি অনুদানে নির্মিত হয়েছে। ম্যানগ্রোভ পিকচারস ও বেঙ্গল ক্রিয়েসন্স এর প্রযোজনায় এই সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন দোয়েল ম্যাশ। তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ইমতিয়াজ বর্ষণ। এছাড়াও অভিনয় করেছেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, মিতা রহমান, গাজী রাকায়েত, আরমান পারভেজ মুরাদ, নওশাবা আহমেদ প্রমুখ।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2021
ভাষা পরিবর্তন করুন »