1. md.zihadrana@gmail.com : admin :
মেঘনা থানার ওসি সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকি - দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ

২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ । রাত ১১:৩১ ।। গভঃ রেজিঃ নং- ডিএ-৬৩৪৬ ।।

সংবাদ শিরোনামঃ
অটোয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন কর্তৃক ‘মহান শহিদ দিবস’ ও ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন পিরোজপুর জেলার নেছারাবাদ থানার সন্ধ্যা নদীর ভাংগন ঠেকানো যাচ্ছে না ইট ভাটার কারনে দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশের পর সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবু হেনা মোস্তাফার বদলি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সুমন সিংহের বিরুদ্ধে ব্যাপক দূর্ণীতির অভিযোগ তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ছবি নিয়ে মিথ্যাচার ইউনিয়ন আ’লীগের পদের বসেই বিপুল অর্থবৃত্তের মালিক জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা’র বুড়িচং উপজেলা কমিটি গঠন রিকশা এমদাদ বাহিনীর তাণ্ডবে অতিষ্ঠ বাড্ডাবাসী, থানায় মামলা আবুল মোল্লার বাড়িতে ভয়াবহ ডাকাতি ! শহর সমাজসেবা কার্যালয়-১,ঢাকা কর্তৃক বাস্তবায়িত কার্যক্রম সমূহ জোরদার করন” শীর্ষক সেমিনার
মেঘনা থানার ওসি সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকি

মেঘনা থানার ওসি সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকি

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লা মেঘনা উপজেলায় ৭ই মার্চ মঙ্গলবার লুটেরচর ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের মৃত বাদশা মিয়ার দ্বিতীয় স্ত্রী শাহানারা বেগম সাংবাদিকদের নিয়ে একটি মানববন্ধন করেন।
স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার এক সংবাদকর্মী শাহানারার কাছ থেকে ভিডিও সাক্ষাৎকার নিতে গেলে তিনি বলেন, ওসির নির্দিশক্রমে বালু ভরাট হচ্ছে। এমন তথ্যের সত্যতা জানতে চাইলে মেঘনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ছমিউদ্দিন বলেন, এটার পিছনে যে সাংবাদিক কলকাঠি নাড়ছে তাদের বিষয়টি আমার দেখতে হবে। সাংবাদিক আবারও প্রশ্ন করলেন যে, এটা কি আপনার বক্তব্য? তখন ওসি বলেন হ্যাঁ এটাই আমার বক্তব্য, এটাই লিখে দেন। এটার পক্ষে যে সাংবাদিক থাকবে ,আমার তাদের দেখার আছে।
সরেজমিনে এলাকাবাসির কাছ থেকে জানা যায়, মৃত বাদশা মিয়া তার দ্বিতীয় স্ত্রী শাহানারাকে ১৯৮৮ সালে বাজানি বাড়ি মৌজার ৩৪৭ দাগের ২২.৫ শতাংশ হতে ১৭ শতাংশ জমি দলিল করে লিখে দেন। কিন্তু দলিল লিখক ভুল করে ৩৪৭ দাগের স্থলে ৩৫৭ লিখে ফেলে। এই ভুলের সুযোগে মৃত বাদশা মিয়ার প্রথম স্ত্রীর সন্তানেরা একই দাগের ১৫ শতাংশ জমি আব্বাস মিয়ার কাছে বিক্রি করে দেয়। এদিকে মৃত বাদশা মিয়ার দ্বিতীয় স্ত্রী শাহানারা বেগম দলিলের দাগ নাম্বার সংশোধনের জন্য কুমিল্লা আদালতে ১৪৫ ধারায় মামলা করেন। বিজ্ঞ আদালত থেকে মেঘনা থানায় তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু আদালতে মামলা চলাকালেই আব্বাস মিয়া বালি দিয়ে জমি ভরাট করার পায়তারা করছে।
শুধু তাই নয়, বিভিন্নভাবে শাহানারা বেগম ও তার সন্তানদের হুমকি দিচ্ছে। ইতি পূর্বেও বালি দিয়ে ভরাট করার চেষ্টা করেছিল। শাহানারা বেগম এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বাঁধা দিলে ওরা চলে যায়। স্থানীয় মেম্বার ইকবাল হোসেন সহ এলাকাবাসী বলেন, ঐ বৃদ্ধা মহিলা বিগত দিন থেকেই ৩৪৭ দাগ জমি ভোগ দখল করে আসছেন। কিন্তু অভাব অনটন এর জন্য জমির দাগ নাম্বার সংশোধন করতে পারেননি এবং এই বৃদ্ধার দখলীয় স্থাপনা একটি দোকান ঘরও রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2021
ভাষা পরিবর্তন করুন »