1. md.zihadrana@gmail.com : admin :
  2. dailysobujbangladesh@gmail.com : Admin ID : Admin ID
  3. uch.khalil@gmail.com : Md. Ibrahim Khalil Molla : Md. Ibrahim Khalil Molla
  4. masud@dailysobujbangladesh.com : Md. Masud : Md. Masud
যাত্রাবাড়ী থানার এস আই মামুন মাতব্ববের ঘুষ বানিজ্য - দৈনিক সবুজ বাংলাদেশ

৫ই জুন, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ । রাত ৩:৪৪ ।। গভঃ রেজিঃ নং- ডিএ-৬৩৪৬ ।।

সংবাদ শিরোনামঃ
মৃতপ্রায় অসুস্থ বৃদ্ধাকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেন গোসাইরহাটের ইউএনও মেঘনায় এসিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সচিব বরাবর অভিযোগ তারাকান্দায় আ.লীগ ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ,আহত-২০ দুর্নীতির অভিযোগে মহাপরিচালক বদলী: পিডির অব্যাহতির আবেদন: ফাওজিয়ার ফটোশপ টেম্পারিং: ডিপিডি ও এপিডিদের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ: নৌ-পরিবহন অধিদপ্তরের লাইটহাউজ নির্মাণ প্রকল্পে হচ্ছে কী? গাজীপুরের মতোই সকল নির্বাচন সুষ্ঠু করবে (ইসি) পিছিয়ে পড়ে থাকা নারীদের স্বাবলম্বী করতে নায়িকা আন্নার উদ্যোগ সোনারগাঁয়ে স্কুল ছাত্রের উপর হামলা ,আটক-১ আমিনপুরে বিকে ফাউন্ডেশন ও বাহারুন্নেছা পাবলিক লাইব্রেরির ভবন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন মাগুরায় এসব হচ্ছে কী? পরপর ৪ সাংবাদিকের ওপর বর্বর হামলা! কিশোরগঞ্জ জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার যুবক দালালের খপ্পরে পড়ে দেশে ফেরত নিঃস্ব বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার
যাত্রাবাড়ী থানার এস আই মামুন মাতব্ববের ঘুষ বানিজ্য

যাত্রাবাড়ী থানার এস আই মামুন মাতব্ববের ঘুষ বানিজ্য

মোঃ রাজুঃ

যাত্রাবাড়ী থানার এস আই মামুন মাতব্বরের লাগামহীন ঘুষ বানিজ্য রুখবে কে। ইতিপূর্বে সাথী বেগম এর ভাই শাহীন কে পরপর ২ বার আটক করে জোর পূর্বক মোটা অংকের টাকা আদায় করেন যাত্রাবাড়ী থানা এস আই মামুন মাতব্বর ও এ এস আই রুবেল মিয়া। এরপর বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ প্রচার ও ডিসি মহোদয়ের কাছে ভুক্তভুগি অভিযোগ করলেও থেমে নেই এস আই মামুন মাতব্বর ও এ এস আই রুবেল মিয়ার ঘুষ বানিজ্য। এজহার সূত্রে জানা যায়, গত ০২/০৯/২০২২ ইং তারিখ আনুমানিক রাত ৮ টা ৪৫ ঘটিকার সময় যাত্রাবাড়ী থানাধীন ১/এ উত্তর কুতুবখালীস্থ ক্যাব এক্সপ্রেস ( বিডি ) লিঃ সিএনজি পাম্পের পাশে জনৈক মোহাম্মদ আলীর চায়ের দোকানের সামনে হতে সঙ্গীয় ফোরস সহ আসামী ১/ মোঃ শফিক (২৭) , পিতা- মোঃ মোখলেস মাতা- হালিমা বেগম, -এ/পি – উত্তর উত্তর কুতুবখালী, সরদার গলি , থানা- যাত্রাবাড়ী,ঢাকা , ও ২/ মোঃ জহিরুল ইসলাম ( ৩২ ), পিতা- মৃত শাজাহান খান মাতা- রুপজান, এ/পি উত্তর কুতুবখালী, সরদার গলি , ( রিনা খান এর বাড়ীর ভাড়াটিয়া) থানা- যাত্রাবাড়ী,ঢাকা কে সর্বমোট ১০০ পিচ নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য ইয়াবা সহ আটক করেন ও যার ধারা-২০১৮ মাদক দ্রব্য আইন এর ৩৬ (১) সারণির ১০ (ক)/৪০/৪১ ধারায় মামলা দিয়ে কোর্টে সোপর্দ করেন যার মামলা নং-১৩/১১৭৬, তারিখ- ০২/০৯/২০২২ইং। তবে ২নং আসামীর কাছে কোনো প্রকার মাদক না পেলেও মাদকদ্রব্য সরবরাহকারী ও সহযোগিতার অপরাধে আটক করা হয় ।

এই প্রতিবেদক সরজমিনে সংবাদ সংগ্রহে গেলে জানতে পারেন,যাত্রাবাড়ী থানাধীন ১/এ উত্তর কুতুবখালীস্থ ক্যাব এক্সপ্রেস ( বিডি ) লিঃ সিএনজি পাম্পের পাশে মুসলিম মাতবর মিয়ার বাসার সামনে থেকে ১০০ পিচ ইয়াবা সহ আটক করা হয় ১ / শফিক ২ / জহিরুল ৩/ মিন্টু ( শফিকের বড় ভাই) কে। কিন্তু এজহারে উল্লেখ করা হয় মোহাম্মদ আলীর চায়ের দোকানের কথা এবং মামলার সাক্ষী ১/ নয়ন মিয়া (৪৯) বলেন, উক্ত ১ নং আসামী থেকে পাওয়া ১০০ ইয়াবা দিয়ে ২ নং আসামীসহ মামলা দেওয়া হয় ।জানা যায় মোহাম্মদ আলীর সাথে গত ৩১/০৮/২০২২ ইং তারিখ আনুমানিক দুপুর ১ ঘটিকার সময় ভাঙরি ব্যাবসার মাল কেনা বেচা নিয়ে মিন্টুর সাথে এক প্রকার তর্ক বিতর্ক হয় । এক পর্যায়ে মিন্টু আলীকে হুমকি প্রদান করে যে, তোকে কিভাবে শায়েস্তা করতে হয় আমার জানা আছে, তুই আর এইখানে ব্যাবসা করতে পারবি না। এই হুমকি প্রদানের ২ দিন অতিবাহিত হতে না হতেই মিন্টু তার ছোটো ভাই শফিক ও ভাগিনা জহিরুল ও সোর্স সেলিমের সহযোগিতায় মোটা অংকের টাকা দিয়ে ০২/৯/২০২২ ইং তারিখ বিকেলে আলীর দোকানে ১০০ পিচ ইয়াবা রাখায় এবং যাত্রাবাড়ী থানা এস আই মামুন মাতব্বরের মাধ্যমে গ্রেফতার করানোর চেষ্টা করে। ঘটনাস্থলে তখন আশেপাশের মানুষ ভিড় জমালে এবং ঘটনার আসল সত্যতা প্রকাশ পেলে মোহাম্মদ আলীকে রেখে এস আই মামুন মাতব্বর উক্ত ১০০ পিচ ইয়াবা নিয়ে চলে যায়। পরবর্তীতে একই দিনে রাত আনুমানিক ৮ টার দিকে মাতবরের নিজ বাড়ীর সামনে থেকে ১/ শফিক ২/ জহিরুল ৩/ মিন্টুকে ১০০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার করা হলেও মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়া হয় মিন্টুকে। ঐ একই রাতে আসামীদের রিমান্ড কাটানোর কথা বলে মিন্টুর কাছে থেকে ১০,০০০ ( দশ হাজার) টাকা নেয় সোর্স সেলিম। এখানেই শেষ নয় মোহাম্মদ আলীকে মামলার ভয়-ভীতি দিয়ে এস আই মামুন মাতব্বরকে দেখিয়ে সোর্স সেলিম ও ফরহাদ মোহাম্মদ আলীর কাছে থেকে ১০,০০০ ( দশ হাজার) টাকা দাবী করে কিন্তু এত টাকা কাছে না থাকায় ৫,০০০ ( পাঁচ হাজার) টাকা নিয়ে আসে।

এখন প্রশ্ন আসামী ২ জনকে ১০০ পিচ ইয়াবা দিয়ে মামলা দেওয়া হলে ১ নং আসামী শফিকের বড় ভাই মিন্টুকে কেনো একই ধারায় গ্রেফতার করা হলো না? উলটা মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়া হলো মিন্টুকে। আবার উল্লেখ্য আলীর দোকান থেকে উদ্ধারকৃত ১০০ পিচ ইয়াবা কোথায় গেলো। এই কাজে মদতদাতা সোর্স সেলিমের কি হলো ? ইতিপূর্বের ২ টি ঘুষ বানিজ্য নিয়ে এস আই মামুন মাতব্বরের নামে সংবাদ প্রকাশ ও ডিসি মহোদয় বরাবর অভিযোগ করা হয় যার অভিযোগকারী এবং তারিখ ।১। সাথি বেগম (১৬-০৮-২০২২ ইং ) ২। নাজমা বেগম (০৪-০৯-২০২২ইং) তারপরেও নেই কোনো ব্যাবস্থা। উক্ত বিষয় টি তদন্ত করে সঠিক আইন প্রয়োগ করলে এই প্রকার অপরাধ কমে আসবে বলে মনে করেন স্থানীয় সচেতন মহল।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2021
ভাষা পরিবর্তন করুন »